সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ০১:২৪ পূর্বাহ্ন

জনপ্রতিনিধি না হয়েও মানবতার ফেরিওয়ালা হিসেবে পরিচিত যুবলীগ নেতা রাজু আহমেদ

জনপ্রতিনিধি না হয়েও মানবতার ফেরিওয়ালা হিসেবে পরিচিত যুবলীগ নেতা রাজু আহমেদ

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয় গত ৮ মার্চ। ২৬ মার্চ থেকে দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে লকডাউন পরিস্থিতি সৃষ্টি করা হয় । তার ফলে কর্মহীন হয়ে পড়ে লাখ লাখ মানুষ।

এরইমধ্যে পোশাক কারখানাসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের হাজার হাজার মানুষের চাকরি চলে যায়। কর্মহীন হয়ে পড়ার কারণে‌ মধ্য ও নিম্নবিত্তের ঘরে ঘরে চলে আর্থিক সংকট।

ঠিক এমন সময় দেশের বহু বিত্তবান হাত গুটিয়ে বসে থাকলেও কিছু মানুষ তাদের সহযোগিতার হাত খোলা রেখেছিলেন ঠিকই। তাদের উদ্দেশ্য আত্মপ্রচার নয়। তারা মানবতার সেবায় নীরবে নিভৃতে সাধারণ মানুষদের সহযোগিতা করেছেনপ্রতিনিয়ত এখনো রয়েছে চলমান।

এই মানবতার ফেরিওয়ালাদের একজন হলেন ঢাকা জেলার সাভার উপজেলার আশুলিয়া ইউনিয়নের ‘মানবতার ফেরিওয়ালা ’ বলে খ্যাত বিশিষ্ট শিল্পপতি ও যুবলীগ নেতা রাজু আহমেদ ।তিনি দেশে করোনা সংক্রমণের প্রথম দিকে গত মার্চ মাসে নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন।

আজও থেমে নেই এই মানবতার ফেরিওয়ালা নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয় একজন সাদামাটা জীবনের মানুষ রাজু আহমেদ এর সাহায্য সহযোগীতার হাত।

আজ (সোমবার) আশুলিয়ার দক্ষিণ গরীবপুর এলাকার অসহায় আমেনা আক্তার গাড়ি এক্সিডেন্ট করে একটি পা ভেঙ্গে অচল হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। এমন খবর পেয়ে ছুটে যান সেই মানবতার ফেরিওয়ালা যুবলীগ নেতা আশুলিয়া ইউনিয়ন বাসীর অহংকার রাজু আহমেদ।আমেনা আক্তার কে পায়ের চিকিৎসার জন্য নগদ অর্থ প্রদান করে,বলেন যদি আরও লাগে আমাকে কারো মাধ্যমে জানাবেন। আমি আপনার পাশে আছি। ইনশাআল্লাহ।

এদিকে একই দিনে আশুলিয়া মডেল একাডেমী স্কুল এর বেহাল অবস্থা হলে তাদের ঢেউটিন এর ব্যবস্থা করে দেন জনতার চোখে মানবিক নেতা রাজু আহমেদ।

একই সময় আশুলিয়ার বিভিন্ন স্থানে ঘুরে ঘুরে হত-দরিদ্র পরিবারের মাঝে নগত অর্থ সহায়তা করেন রাজু আহমেদ।আশুলিয়ার জাহাঙ্গীর আলম চানগাও সুজাবাদ,মালা বেগম আশুলিয়া গরিপুর কে সহ কয়েক জন কে নগত অর্থ সহায়তা করেন রাজু আহমেদ।

বিশিষ্ট শিল্পপতি ও যুবলীগ নেতা রাজু আহমেদ এর মানবিকতা দেখে আশুলিয়া ইউনিয়নের সকল জনগণ তাঁকে মানবতার ফেরিওয়ালা হিসেবে চিনেন জানেন।

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ও অনলাইন নিউজে ব্যপক প্রচার করে যাচ্ছেন রাজু আহমেদ এর সমথর্ন ও ভক্তরা। আসন্ন আগামী ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চান রাজু আহমেদকে।

আশুলিয়ার জনগণের একটাই দাবী আগামী ইউপি নির্বাচনে আমরা এই মানবিক নেতা রাজু আহমেদ কে চেয়ারম্যান হিসেবে চাই। যিনি কিনা প্রতিনিধি না হয়েই আমাদের বিপদে আপদে পাশে এসে দাড়ায়।

এদিকে আশুলিয়া বর্তমান চেয়ারম্যান এর রয়েছে নানান ধরনের অপকর্মে অভিযোগ। জনগণের কাছেও নেই তেমন কোনো জনপ্রিয়তা।

করোনাকালের প্রথম থেকেই বিশিষ্ট শিল্পপতি ও যুবলীগ নেতা রাজু আহমেদ বিশ্ব পরিস্থিতির আলোকে বুঝতে পেরেছিলেন,কী ঘটতে যাচ্ছে প্রিয় বাংলাদেশে। তাই তো নিজের ফেসবুক স্ট্যাটাসে মানবতার সেবায় সম্মিলিতভাবে কাজ করার জন্য যার যার অবস্থান থেকে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান এই নেতা।

দেশে করোনা সংক্রমণের শুরু থেকেই প্রতিদিন নতুন উদ্যোগ আর নতুন চিন্তা ভাবনায় বাংলাদেশ সরকারের পাশাপাশি ব্যক্তিগত উদ্যোগে কর্মহীন ও অসহায় মানুষের পাশে ছিলেন এই নেতা।

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতির শুরুতে মানুষকে খাদ্য সহায়তা দিতে দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে চষে বেড়িয়েছেন পুরো সাভার আশুলিয়া এলাকাসহ বিভিন্ন এলাকায়। ব্যক্তিগতভাবে আশুলিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার অসহায় ও কর্মহীন হয়ে পড়া হাজার হাজার পরিবারের মাঝে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে নিজ হাতে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন তিনি।

এরপর দিন যায়, কিন্তু সাভার উপজেলা সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে করোনার প্রকোপ বাড়তে থাকে। এতে দিশেহারা হয়ে পড়েন দেশের মানুষ।’ সেখানে দ্বিতীয় দফায় হতদরিদ্রদের খাদ্য সহায়তা, স্বাস্থ্য সুরক্ষার সরঞ্জাম বাবদ ব্যয় করেন লাখ লাখ টাকা।

রাজু আহমেদ বলেন, এই যে দানশীলতা। এটা আমার রক্তে মিশে আছে। এটা আমি উত্তরাধিকার সূত্রে প্রাপ্ত। আমার বাবাকে দেখেছি, তিনি সব সময়ে সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করতেন, তাদের নানাভাবে সহযোগিতা করতেন। বাবাকে মানুষ দানবীরের উপাধিতে ভূষিত করেছেন।

সবার কাছে দোয়া চেয়ে যুবলীগ নেতা রাজু আহমেদ বলেন, এই ধারাবাহিকতা যেন যে কোনো দুর্যোগে অবশ্যই অব্যাহত রাখতে পারি। আর আমি বিশ্বাস করি, দেশের যে কোনো দুর্যোগ পরিস্থিতিতে বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগ সাধারণ মানুষের পাশে আগেও ছিল, বর্তমানেও আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।





পুরাতন নিউজ খুঁজুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
©2019-2021 Daily Vorer Kantho. All rights reserved.