শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০২:৫৬ পূর্বাহ্ন

সাভারে মিক্সার কারখানা এলাকাবাসীর গলার কাঁটা!

সাভারে মিক্সার কারখানা এলাকাবাসীর গলার কাঁটা!

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সাভারের সবুজ এলাকা নামে পরিচিত বিরুলিয়া। এই সবুজ এলাকায় রয়েছে পরিবেশের নানা বৈচিত্র্য। এখানে রয়েছে বিক্ষ্যাত গোলাপ গ্রামসহ নানা সবিজর সমাহার। কিন্তু এই পরিবেশকে নষ্ট করছে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী।

রিতিমত পরিবেশ নষ্ট করার জন্য যেনো তারা আটঘাট মেরেই নেমেছে। মানছে না কারো কথা। মানছেনা এলবাসীর অনুরোধ। তাদের এই পরিবেশ নষ্টকারি মিক্সার কারখানার যন্ত্রগুলো এখন এলাকাবসীর গলার কাঁটা হয়ে দাড়িয়েছে।

জানা গেছে, ফাইভ স্টারসহ আর একটি কারখানা দীর্ঘদিন যাবৎ সরকারি অনুমতি ছাড়পত্র ছাড়া অবৈধভাবে চালিয়ে আসছে। বিরুলিয়া ইউনিয়নের খেয়াঘাট পুরান মসজিদের পাশে চলছে কারখানা। এতে যেমন দুষিত হচ্ছে পরিবেশ তেমন নষ্ট হচ্ছে ফসলি জমিও। কারখানাগুলোর গাড়ির কারণে বিরুলিয়া সড়কে তৈরি হচ্ছে যানজট ও ধুলা৷ এছাড়া শিশু-কিশোরা যখন লেখা-পড়া করবে, তখন এই কারখানাটি তাদের টাকার লোভ দেখি তারা অল্প ব্যয়ে শ্রমিক জোগাড় করে নিয়েছেন।

সরজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, কারখানার চারপাশে ঘনবসতি আর কৃষকদের ধানক্ষেত। কারখানার ময়লা দুর্গন্ধময় পানি আর আবর্জনা বসত বাড়ির চারপাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে আছে। আর তার দুর্গন্ধে পরিবেশ দুষিত হয়ে উঠছে। এতে করে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুসহ গ্রামবাসী। রাস্তা বা বাড়ির পাশ দিয়ে লোক চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

স্থানীয় ভুক্তভোগীরা জানান, এই মিক্সচার কারখানার শব্দ ও ময়লা পানির দুর্গন্ধে এখানে বসবাস করা অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে। ঘরের জানালা খোলা যায় না। দুর্গন্ধে আমার ছেলে-মেয়ের মাঝেমধ্যে ডায়রিয়া আর বমি হয়ে থাকে। তাদের লেখা-পড়ায় মন বসছেনা। এই কারখানার দুর্গন্ধে আমাদের বসাবাসের অনেক অসুবিধা হচ্ছে।

স্থানীয় মালেক নামের এক ভুক্তভোগী বলেন, এই কারখানার অত্যাচারে আমাদের বাড়ি ছাড়তে হবে। কে শোনে কার কথা,এতো বলার পরও কারখানার মালিকের গায়ে কথা লাগে না। নিষেধ করলে ঐ মালিকের আবার বড় বড় কথা বলে।তিনি আরও বলেন, প্রশাসনের নিকট আমাদের আকুল আবেদন, এইখানে একটা বসবাসের পরিবেশ তৈরি করে দেন।

বিরুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: সাইদুর রহমান সুজন বলেন, বিষয়টি নিয়ে আমার কাছে স্থানীয়রা অভিযোগ দিয়েছে। এছাড়া তারা ট্রেড লাইসেন্সও ছাড়াই এসব কারখানা গড়ে তুলেছে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে শীঘ্রই।

সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শামীম আরা নিপা বলেন, আমারা একটি অভিযোগ পেয়েছে। দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।





পুরাতন নিউজ খুঁজুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
©2019-2021 Daily Vorer Kantho. All rights reserved.