সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ১২:৪৪ পূর্বাহ্ন

না দেখার ভান করে গার্মেন্টস কর্মকর্তাকে চাপা দেয় আশুলিয়া ক্ল্যাসিক

না দেখার ভান করে গার্মেন্টস কর্মকর্তাকে চাপা দেয় আশুলিয়া ক্ল্যাসিক

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ আশুলিয়া ক্ল্যাসিক পরিবহনের হেলপার গার্মেন্টস কর্মকর্তাকে দেখেও না দেখার ভান করে চালককে সামনে এগিয়ে নিতে বলেন। এসময় বাসের নিচে চাপা পড়ে গার্মেন্টস কর্মকর্তা শামছুল আলম মারা যান। এভাবেই র‌্যাবের কাছে আশুলিয়া ক্ল্যাসিক পরিবহনের হেলপার শাকিল নিজের দোষ স্বীকার করেন বলে জানায় র‌্যাব।

রোববার (১৪ মার্চ) দুপুরে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব ৪ এর এএসপি জিয়াউর রহমান চৌধুরী। এর আগে শনিবার (১৩ মার্চ) রাত ১০ টার দিকে সাভারের জামতলা এলাকা থেকে অভিযুক্ত দুই জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তাররা হলেন- আশুলিয়া ক্ল্যাসিক পরিবহনের চালক ও শেরপুর জেলার বাসিন্দা মোঃ ওয়াসিম ওরফে আল-আমিন (২৫), ও সহযোগী নারায়ণগঞ্জ জেলার বাসিন্দা মোঃ শাকিল (২৮)।

আসামি ওয়াসিম ওরফে আল-আমিন ঘটনার দিন বাসটি চালিয়ে নরসিংপুর এলাকায় পৌঁছালে সামনে থাকা অপর একটি ক্লাসিক পরিবহণের বাসকে ওভারটেক করার সময় ওই পোশাক কারখানার কর্মকর্তা মারা যান। ওয়াসিম ওরফে আল-আমিনের নিজস্ব কোন ড্রাইভিং লাইসেন্স নাই। তিনি নেশাগ্রস্ত অবস্থায় বাস চালাচ্ছিলেন।

হেলপার শাকিল আশুলিয়া ক্লাসিক পরিবহণের একজন নিয়মিত হেলপার। তিনি চালক ওয়াসিম ওরফে আল-আমিন এর সাথে হেলপার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। তবে গার্মেন্টস কর্মকর্তা শামছুল আলমকে দেখেও না দেখার ভান করে ড্রাইভারকে সামনে এগিয়ে যেতে বলেন শাকিল। এসময় বাসের নিচে চাপা পড়েন শামছুল আলম।

সড়ক পরিবহন আইনে দুর্ঘটনা কবলিত বাসের অবস্থা:

আশুলিয়া ক্ল্যাসিক পরিবহনের ওই বাসটির রুট পারমিট গত ৩১ জানুয়ারি ২০২১ তারিখে মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়। ফিটনেস সার্টিফিকেট এর মেয়াদ উত্তীর্ণ হয় গত ২৬ মার্চ ২০২০। এছাড়া গত ৩১ জানুয়ারি ২০২০ তারিখের পর এই বাসটির ট্যাক্স টোকেন কোন প্রকার আপডেট করা হয়নি।

এই পরিবহনে সংঘটিত যত অপরাধ:

২০১৯ সালের মার্চ মাসে একজন তরুনীকে “আশুলিয়া ক্লাসিক পরিবহন” এর বাসে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ ওঠে। এ মামলায় বাসের চালক-হেলপারসহ মোট ৩ জনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

২০২০ সালের জুলাই মাসে “আশুলিয়া ক্লাসিক” পরিবহন এর ভেতর আবার তরুণীকে গণ-ধর্ষণের অভিযোগে বাসের চালক-হেলপারসহ ৭ জনকে গ্রেপ্তার করে আশুলিয়া থানা পুলিশ।

২০১৭ সালের ২৮ জুলাই হাত-পা বাঁধা অবস্থায় নৃশংসভাবে হত্যাকান্ডে শিকার এক যুবকের মরদেহ এই একই পরিবহন “আশুলিয়া ক্লাসিক” এর একটি বাস থেকে উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব ৪ এর এএসপি জিয়াউর রহমান চৌধুরী বলেন, গ্রেফতারকৃত আসামীদের আশুলিয়া থানায় হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

প্রসঙ্গত, গত ১১ মার্চ সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে শারমিন গার্মেন্টস এর প্রশাসনিক কর্মকর্তা শামছুল আলম (৪৫)’কে “আশুলিয়া ক্লাসিক পরিবহণ” রং সাইডে গিয়ে চাপা দিলে তিনি মারা যান। এঘটনায় বাইপাইল সড়ক অবরোধ করে আনুমানিক ১০ থেকে ১২ টি বাস ভাঙ্গচুর ও ৩ টি অগ্নিসংযোগ করে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা। আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা চালক ও হেলপারকে দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনার আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেয় তারা।





পুরাতন নিউজ খুঁজুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
©2019-2021 Daily Vorer Kantho. All rights reserved.