রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০১:১২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
রাজারহাট উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির মানববন্ধন আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার পক্ষে একজোট হয়ে কাজ করতে হবে বাণিজ্যমন্ত্রী সাভারে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের ময়লা পরিষ্কার পবিপ্রবি রোভার এন্ড গার্ল-ইন রোভারের ইউনিফর্ম বিতরণ সভা অনুষ্ঠিত নওগাঁর রাণীনগরে একজন শিক্ষক দিয়ে চলছে লক্ষীকোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় বাঘাইছড়িতে বিশ্ব খাদ্য দিবস ২০২১ উপলক্ষে রেলী ও আলোচনা সভা উদযাপন সোনারায় এর নৌকার মাঝি মজিদ মিরপুরে আওয়ামী লীগের দুই চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ গোয়াইনঘাটে তৃতীয় ধাপে ৬ টি ইউনিয়নে ২৮ নভেম্বর ইউপি নির্বাচন আওয়ামীলীগের বিতর্কিত কমিটি বিলুপ্তি ঘোষণা, আহ্বায়ক কমিটি গঠনের নির্দেশ
নাটোর বাগাতিপাড়া এতিম শিশুদের বুকে নিয়ে কাঁদলেন ডিসি

নাটোর বাগাতিপাড়া এতিম শিশুদের বুকে নিয়ে কাঁদলেন ডিসি

 নাটোর প্রতিনিধিঃ
 
নাটোর জেলা প্রশাসক (ডিসি) হিসেবে সরকারি দায়িত্ব পালনের জন্য এসেছিলেন তিনি। মেয়াদ ছিল দুই বছর। এর মধ্যেই কর্মগুণে তিনি স্থান করে নিয়েছেন নাটোরবাসীর অন্তরে। তিনি নাটোরের বিদায়ী জেলা প্রশাসক মো. শাহরিয়াজ। তাই তো তার বিদায়ের আদেশ হয়েছে জানার পর কাঁদছে নাটোরবাসী। আর সেই কান্না থেকে বাদ গেলো না নাটোরের এতিম শিশুরাও।ওই শিশুদের প্রতি মমত্বে কাঁদলেন জেলা প্রশাসকও।
জেলা প্রশাসক হিসেবে মো. শাহরিয়াজ নাটোরে আসার পর অল্প কিছুদিনেই নাটোরবাসীর হৃদয়ে স্থান করে নেন। যখনি কোথাও কোনও সংকট দেখেছেন তিনি ছুটে গেছেন। পাশে দাঁড়িয়েছেন সবার বিপদ-আপদে। চলমান এই করোনাকালে সরকারি ত্রাণ সঠিকভাবে বণ্টন থেকে শুরু করে সব কাজে তিনি ছিলেন সাধারণ মানুষের পাশে। এরই ধারাবাহিকতায় সাবেক জেলা প্রশাসক শাহিনা খাতুনের পথ ধরে তিনিও আপন হয়ে ওঠেন জেলার দিঘাপতিয়া বালিকা শিশুসদনের এতিম শিশুদের কাছেও। প্রায়ই ছুটে যেতেন তিনি ওই এতিমদের কাছে। ভালোবাসায়-মমত্বে ভুলিয়ে রাখতেন এতিম শিশুদের, ঠিক যেন বাবার মতো।
সরকারি আদেশ অনুযায়ী জেলা প্রশাসক শাহরিয়ার নাটোর ছেড়ে চলে যাবেন মঙ্গলবার। তাই নাটোরের বিভিন্ন সংগঠন আর প্রতিষ্ঠান তাকে বিদায় দিচ্ছে অশ্রুসিক্ত নয়নে। কিন্তু শেষ সময়ে হঠাৎ সোমবার বিকালে তিনি উপস্থিত হন দিঘাপতিয়া বালিকা শিশুসদনে। শিশুরা আগেই জেনেছিল তার বদলির খবর। তখন থেকেই তাদের মন ছিল খারাপ। এমন অবস্থায় হঠাৎ জেলা প্রশাসকের উপস্থিতিতে ছুটে আসে এতিম শিশুরা। আবেগে-পিতৃস্নেহে তাদের জড়িয়ে ধরেন জেলা প্রশাসক। সৃষ্টি হয় এক আবেগঘন পরিবেশ। শিশুদের জড়িয়ে ধরে কাঁদতে থাকেন জেলা প্রশাসক। অশ্রু ঝরতে থাকে শিশুদেরও। এমন দৃশ্য দেখে উপস্থিত কেউই আটকাতে পারেননি চোখের পানি।





পুরাতন নিউজ খুঁজুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
©2019-2021 Daily Vorer Kantho. All rights reserved.