সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ১২:৪৪ পূর্বাহ্ন

জাফলং নিম্নমানের প্রসাধনীর রমরমা ব্যবসা অভিযানে ওসি রতন শেখ

জাফলং নিম্নমানের প্রসাধনীর রমরমা ব্যবসা অভিযানে ওসি রতন শেখ

 

ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধিঃ
সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার জাফলং পর্যটন স্পটে নকল প্রসাধনীর রমরমা ব্যবসা। বিভিন্ন জেলা থেকে আগত পর্যটকরা এসব নকল পণ্য কিনে হচ্ছেন প্রতারিত।
দেশে নাগরিক জীবনযাত্রার সবকিছুই নকলবাজিতে বন্দী হয়ে পড়েছে। একদা কেবল পরীক্ষার ক্ষেত্রে টুকিটাকি নকলের কথাই জানা ছিল মানুষের। এখন নকল জন্মদান থেকে শুরু করে ‘ভুয়া মৃত্যু’ পর্যন্ত সব ক্ষেত্রেই নকলের একচ্ছত্র দাপট। নকলবাজির এ সাম্রাজ্যে সবই আছে, শুধু ‘আসলটাই’ উধাও। বাজারে এমন কিছু নেই, যা নকল হয় না। জীবন রক্ষাকারী ওষুধ থেকে শুরু করে সার, কসমেটিকস, পানীয়, ইলেকট্রনিক, অটোমোবাইল পার্টস, পাইপ, প্লাস্টিক পণ্য, সিমেন্ট, ভুয়া ডাক্তার, ভুয়া পুলিশ, ন্যাশনাল আইডি—কী নেই নকল? নকল-ভেজাল-মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্যসামগ্রীতে ছেয়ে গেছে দেশ। অবলীলায় এসব পণ্য বিক্রি হচ্ছে চোখের সামনেই। পণ্য ভেরিফিকেশনের জন্য হলোগ্রাম, স্টিকার, স্ক্যানার, আরএফআইডি ট্যাগ, বারকোড ইত্যাদি সিস্টেম চালু আছে। কিন্তু সেসব হলোগ্রাম বা স্টিকারগুলোও যখন নকল করা হয় তখন গ্রাহক কোনোভাবেই আর আসল-নকল আলাদা করতে পারেন না। চকচকে মোড়কে মোড়ানো পণ্য মানেই যে ‘আসল’ তা কিন্তু নয়। বরং আসলের চেয়ে ‘নকল’ পণ্যের প্যাকেট অধিক উন্নত, বেশি চকচকে।
পর্যটন খ্যাত বিউটি কন্যা জাফলং পর্যটন স্পটে বল্লাঘাট থেকে শুরু করে মায়াবী ঝর্ণা নকল ও নিম্নমানের সাবান, চন্দন, মেছতা-দাগনাশক বিভিন্ন ক্রিম, নানা প্রসাধনী, তেল, পারফিউমসহ বিভিন্ন নামিদামি কোম্পানির ব্র্যান্ডের শ্যাম্পু সবকিছুই পাইকারি ও খুচরা বিক্রি হচ্ছে। এসব নকল সামগ্রীর প্যাকেট বা বোতলে সাঁটানো থাকে বিভিন্ন দেশের লেভেল। রকমারি বিদেশি পণ্যের সমারোহে চোখ ধাঁধিয়ে যায়। পৃথিবীর যত নামকরা ব্র্যান্ডের প্রসাধনসামগ্রী এর সবই পাওয়া যায় জাফলং পর্যটন স্পট কেন্দ্রে।
সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের সদস্যরা ও বিভিন্ন দালাল চক্র এসব নকল প্রসাধনির রমরমা বাণিজ্য ফাঁদ পেতে বসেছে। ডোরাকাটা দাগ দেখে বাঘ চেনা গেলেও নকল প্রসাধনী চেনার উপায় নাই,তাই প্রতারণা থেকেও রেহাই মিলছে না।
সরেজমিন পরিদর্শনে দেখা যায়, পর্যটন স্পটগুলো বন্ধ থাকলেও সরকারি নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে পর্যটন স্পটে চলে আসছেন কিছু পর্যটকরা, তাদের নিরুৎসাহিত করে ফিরিয়ে দিচ্ছে টুরিস্ট পুলিশ। এই সুযোগে নিম্নমানের এইসব নকল প্রসাধনী কিনে প্রতারিত হচ্ছেন পর্যটক নামের ক্রেতারা আর হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে অসাধু ব্যবসায়ী চক্র।
সিলেট আখালিয়া থেকে বেড়াতে আসা ফয়জুর রহমান নামের একজন পর্যটক ডাব সাবানের বক্স কিনে বাসায় গিয়ে ভিতরে পান মেরিল সাবান। তিনি মোবাইলে জাফলং টুরিস্ট পুলিশের ওসি রতন শেখকে জানালে, টুরিস্ট পুলিশের দায়িত্বরত ওসি রতন শেখ তাৎক্ষণিক জাফলং মায়াবী ঝর্ণায় অভিযান পরিচালনা করে বিকাশের মাধ্যমে প্রতারিত পর্যটকের টাকা ফেরত দেন এবং এক দোকান থেকে ডাব নামক ব্রান্ড কোম্পানির নকল শ্যাম্পু উদ্ধার করে নষ্ট করেন।
প্রতারিত হওয়া পর্যটক ফয়জুর রহমান প্রতিবেদককে জানান, প্রসাধনী কিনে প্রতারিত হচ্ছে শুধু তাই নয়, ফটোগ্রাফারদের দৌরাত্ব্য আরো বেশি। এদের কবলে পড়ে পর্যটকরা আরো বেশি নাজেহাল ও দুর্ভোগের শিকার। বিভিন্ন জায়গা থেক আসা পর্যটকদের সাথে বাকবিতণ্ডা,ঝগড়া ঝাঁটি ও কথা কাটাকাটি হরহামেসা নিত্যদিন।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জাফলং সাব-জোন টুরিস্ট পুলিশের ওসি রতন শেখ বলেন, আমি এবং আমার ফোর্স প্রতিদিন পর্যটকদের জানমালের নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত। যেকোনো অভিযোগ পাওয়া মাত্র আমি ব্যবস্থা নিচ্ছি। আমার ডিপার্টমেন্ট থেকে কোনো গাফিলতি এবং দায়িত্বে কোন অবহেলা নেই। তিনি বলেন, আমি আজও অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে প্রতারিত হওয়া পর্যটকের টাকা ফেরত দেই এবং নিম্নমানের প্রসাধনী নষ্ট করে ফেলি। দামী ব্রান্ডের ডাব কোম্পানির সিল মোহর মারা শ্যাম্পু বডি লোশন যা ভাতের মাড় ও এলারুট দিয়ে তৈরি করা হয়।





পুরাতন নিউজ খুঁজুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
©2019-2021 Daily Vorer Kantho. All rights reserved.