শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০১:৫৩ পূর্বাহ্ন

লোহাগড়া বাজারে বৃদ্ধা মোছলেমের পিঠে সব্জির থলিব্যাগ

লোহাগড়া বাজারে বৃদ্ধা মোছলেমের পিঠে সব্জির থলিব্যাগ

 

মোঃ এনামুল হক নড়াইল ব্যুরো প্রধানঃ

ভয়ানক করোনারভাইরাস সংক্রমণকে উপেক্ষা না করে সব্জির ঝুলি ব্যাগ পিঠে নিয়ে বাশেঁর লাঠিতে ভর করে ধীরে ধীরে হাটছে মোসলেম মোল্যা।

নড়াইল জেলা সদর উপজেলার আউড়িয়া ইউনিয়নের মূলদাইড় গ্রামের বাসিন্দা। মোসলেম মোল্যার বয়স ৯৮ বছর। সংসারে তার স্ত্রী ও চারটি কন্যাসন্তান আছে।

লোহাগড়া বাজারে বিভিন্ন জায়গাতে এই বয়সে জীবন জীবিকার জন্য থেমে নাই।পিঠে করে সবজির ঝুলি নিয়ে বেচাকেনা করছে তার ফ্যামেলির পরিবারের সদস্যদের বাচানোর জন্য।

লোহাগড়া উপজেলার প্রধান সড়কের সামনে মোসলেম মোল্যার সাথের বিষয়টি জানা যায়।

তিনি অভাব অনাটনের কারনে চারটি মেয়েকে বিবাহ দিয়েছেন। বিবাহের পর তারা স্বামীর বাড়িতে অবস্থান করছে।তারা মোটামুটি সুখি আছে।

এই বয়স্ক মোসলেম মোল্যার নিজের কোন জায়গা জমি নেই।অন্যর বাড়িতে দিনযাপন করছে। তার স্ত্রী কে নিয়ে মোসলেম কোন রকম দিন যায় রাত পহায় সেভাবে মৃত্যুর বয়স পার করছে।

মোসলেম কোন সরকারি অনুদান পান না,বয়স্কভাতা পান না, দুঃখের কথা বলতে যেয়ে দুচোখে কান্নায় ভেসে ওঠে। গ্রামের বিভিন্ন জায়গায়ের থেকে কচুরলতি,কচুরডগা,ঘাটকোল,কলমিশাক,থানকুনির পাতা ইত্যাদি সবজি সংগ্রহ করে বাজারে এবং বাড়িতে বাড়িতে বিক্রি করে মোসলেম মোল্যা।

মোসলেম মোল্যা একজন মুসলিম পরিবারের সন্তান পাচঁ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করেন।তিনি বলেন সৎভাবে উপার্জন করে বেচেঁ থাকতে চান,এই জন্য কষ্ট করতে চান। দুঃখ ক্ষোভের প্রকাশ করলেন যদি ছেলে থাকতো আমার হয়তো এত কষ্ট হতো না।
মোসলেম মোল্যার প্রয়োজন সরকারি অনুদান এবং সরকারের প্রতি অনুরোধ তার প্রতি যেন নজর দেন।এলাকাবাসী এমনটাই প্রত্যাশা করেন।





পুরাতন নিউজ খুঁজুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
©2019-2021 Daily Vorer Kantho. All rights reserved.