সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ০১:৪৯ পূর্বাহ্ন

অবৈধ ভাবে ভারতে পাচার হওয়া দুই তরুনীকে হস্তান্তর

অবৈধ ভাবে ভারতে পাচার হওয়া দুই তরুনীকে হস্তান্তর

 

শর্শা প্রতিনিধিঃ

যশোর বেনাপোল ভারতে পাচারের শিকার মৌসুমি খাতুন (২৫) মরিয়ম খাতুন (২৬)নামে দুই কিশোরীকে ৬ বছর পর বেনাপোল বন্দর দিয়ে বেনাপোল পেট্রাপোল ভারতে পাচারের শিকার মৌসুমি খাতুন (২৫) মরিয়ম খাতুন (২৬)নামে দুই কিশোরীকে ৬ বছর পর বেনাপোল বন্দর দিয়ে বাংলাদেশে ফেরত পাঠিয়েছে ভারতীয় পুলিশ।মঙ্গলবার (২০ জুলাই) বিকালে ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ তাদেরকে ট্রাভেল পারমিট প্রক্রিয়ায় বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের হাতে সোপর্দ করে।

ফেরত আসা কিশোরীরা হলেন যশোর অভয়নগর থানার বাসয়াড়ি উপজেলার শহিদ বিশ্বাসের মেয়ে।সিরাজগঞ্জ জেলার দুর্গানগর উপজেলার উল্লাপাড়া গ্রামের বেল্লাল হোসেনের মেয়ে মৌসুমি।
বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি তদন্ত) মুজিবর রহমান জানান, ইমিগ্রেশনে কাগজ পত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে আইনী সহয়তা দিয়ে ঐ কিশোরীদের জাস্টিস এন্ড কেয়ার নামে একটি এনজিও সংস্থ্যা গ্রহন করেছে।

কিশোরীদের গ্রহনকারী এনজিও সংস্থ্যা জাস্টিস এন্ড কেয়ারের যশোর শাখার ফিল্ড অফিসার রোকেয়া খাতুন জানান,ভাল কাজের প্রলোভনে দালাল চক্রের খপ্পরে পড়ে ঐ কিশোরীরা ভারতে গিয়ে পুলিশের হাতে ধরা পড়ে। এসময় পাচারকারীরা তাকে ভাল কাজ না দিয়ে বোম্বাই শহরে ঝুঁকি পুর্ন অসামাজিক কাজে লিপ্ত করাই খবর পেয়ে ভারতীয় পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদের উদ্ধার করে। পরে অবৈধ অনুপ্রবেশ আইনে মামলা দিয়ে আদালতে সোপর্দ করে। সেখান থেকে ভারতীয় বোম্বাই রিমান্ড গায়ঘাট পাটনার নামে একটি এনজিও সংস্থ্যা তাকে ছাড়িয়ে নিজেদের হেফাজতে রাখে। পরে রাষ্ট্রীয় প্রক্রিয়ায় ট্রাভেল পারমিটে তাকে দেশে ফেরত পাঠানো হয়।

বাংলাদেশে ফেরত পাঠিয়েছে ভারতীয় পুলিশ।মঙ্গলবার (২০ জুলাই) বিকালে ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ তাদেরকে ট্রাভেল পারমিট প্রক্রিয়ায় বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের হাতে সোপর্দ করে।

ফেরত আসা কিশোরীরা হলেন যশোর অভয়নগর থানার বাসয়াড়ি উপজেলার শহিদ বিশ্বাসের মেয়ে।সিরাজগঞ্জ জেলার দুর্গা নগর উপজেলার উল্লাপাড়া গ্রামের বেল্লাল হোসেনের মেয়ে মৌসুমি।
বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি তদন্ত) মুজিবর রহমান জানান, ইমিগ্রেশনে কাগজ পত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে আইনী সহয়তা দিতে ঐ কিশোরীদের জাস্টিস এন্ড কেয়ার নামে একটি এনজিও সংস্থ্যা গ্রহন করেছে।
কিশোরীদের গ্রহনকারী এনজিও সংস্থ্যা জাস্টিস এন্ড কেয়ারের যশোর শাখার ফিল্ড অফিসার রোকেয়া খাতুন জানান,ভাল কাজের প্রলোভনে দালাল চক্রের খপ্পরে পড়ে ঐ কিশোরীরা ভারতে গিয়ে পুলিশের হাতে ধরা পড়ে।

এসময় পাচারকারীরা তাকে ভাল কাজ না দিয়ে বোম্বাই শহরে ঝুকি পূর্ণ কাজে ব্যবহার করে। খবর পেয়ে ভারতীয় পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাকে উদ্ধার করে। পরে অবৈধ অনুপ্রবেশ আইনে মামলা দিয়ে আদালতে সোপর্দ করে। সেখান থেকে ভারতীয় বোম্বাই রিমান্ড গায়ঘাট পাটনার নমে একটি এনজিও সংস্থ্যা তাকে ছাড়িয়ে নিজেদের হেফাজতে রাখে। পরে রাষ্ট্রীয় প্রক্রিয়ায় ট্রাভেল পারমিটে তাকে দেশে ফেরত পাঠানো হয়।

মোঃমুরাদ হোসেন/ই.না.তা





পুরাতন নিউজ খুঁজুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
©2019-2021 Daily Vorer Kantho. All rights reserved.