শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২, ০২:০৬ পূর্বাহ্ন

এবার সাভারে ইউপি সদস্য প্রার্থী খর্বাকৃতি নারী

এবার সাভারে ইউপি সদস্য প্রার্থী খর্বাকৃতি নারী

সাভার প্রতিনিধিঃ সকল প্রতিবন্ধকতা ছাপিয়ে লেখাপড়া প্রায় শেষের দিকে সালমার। সাভার বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে মাস্টার্সে পড়ছেন তিনি। এবার ইউপি সদস্য হিসাবে নির্বাচন করবেন ৩ ফুট ২ ইঞ্চির খর্বাকৃতির এই সালমা। তার বিশ্বাস ভোটাররা তাকে ভোট দিয়ে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করবেন।

আগামী ৫ জানুয়ারি ৫ম ধাপের নির্বাচনে সাভারে ইউপি সদস্য হিসাবে লড়বেন তিনি। সাভারের বিরুলিয়া ইউনিয়নের ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা আসনে প্রার্থী হিসাবে আজ বুধবার (৮ ডিসেম্বর) সাভার অধরচন্দ্র স্কুলে মনোনয়ন জমা দেন তিনি।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বিরুলিয়ার কালিয়াকৈর গ্রামের মোহাম্মদ আলীর মেয়ে সালমা আক্তার। জন্মের পরই বাবা-মা অনুভব করেছিলেন তার মেয়ে হবে খর্বাকৃতির। এ নিয়ে তাদের দুঃখের সীমা ছিল না। সব সময় চিন্তা করতেন সে তাদের পরিবারের বোঝা হয়ে থাকবে। কিন্তু তিনি সকল প্রতিবন্ধকতা ছাপিয়ে ২০২০ সালে বিএ পাশ করে বর্তমানে সাভার বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার্সে পড়ছেন তিনি। এবার ইউপি সদস্য প্রার্থী হিসাবে নির্বাচনও করছেন। এলাকাবাসীর ব্যাপক সারা পেয়ে উদ্বুদ্ধ হয়েছেন তিনি। তিনি দেখাতে চান প্রতিবন্ধী বা খর্বাকৃতির নারীরা বোঝা নন। বর্তমানে প্রতিবন্ধীদের নিয়ে সেচ্ছাসেবক হিসাবে কাজও করছেন তিনি।

ইউপি সদস্য প্রার্থী খর্বাকৃতির সালমা বলেন, আমি ছোট বেলা থেকে বিভিন্ন প্রতিকুলতার মধ্য দিয়ে বড় হয়েছি। স্কুলে যেতে মানুষ হাসাহাসি করতো। কলেজে যেতে বাসে উঠতে ব্যঙ্গ করতো মানুষ। বলতো আমি লেখাপড়া করে কি করবো। আমি দেখাতে চাই খর্বাকৃতিরা বোঝা নয়। তারাও অনেক কিছু করতে পারেন। আমি ইউনিয়ন পরিষদে কাগজপত্র নিতে ভোগান্তিতে পড়েছি। এধরনের ভোগান্তি নিরসনে কাজ করবো। মানুষ অবহেলিত হলে তাদের কি যন্ত্রণা তা আমি বুঝি। তাই অবহেলিতদের নিয়ে কাজ করতে চাই। আমি মানুষের সেবা করে দেখিয়ে দিতে চাই খর্বাকৃতির মানুষও সব করতে পারে। এলাকাবাসীরও ব্যাপক সারা পাচ্ছি আমি। এমন নির্বাচনের দিন পর্যন্ত থাকলে আমি অবশ্যই নির্বাচিত হবো।

এব্যাপারে স্থানীয় ভোটার উম্মে কুলসুম বলেন, এবার সংরক্ষিত আসনে যারা প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন তাদের মধ্যে খর্বাকৃতির হলেও সালমা বেশি শিক্ষিত। সে প্রতিবন্ধী হয়ে দেখিয়ে দিতে চায় প্রতিবন্ধীরা ভোঝা নয়। তাই আমরা মনে করে তাকে সুযোগ দেওয়া দরকার। তার কাছ থেকে প্রতিবন্ধীর বাবা মা কিংবা প্রতিবন্ধীরা যেন অনুপ্রেরণা পান। এজন্য হলেও আমরা তাকেই ভোট দেবো।

সালমার ভগ্নিপতি সিরাজুল বলেন, আমি ছোটবেলা থেকে তাকে সহযোগিতা করেছি। এখনও করে যাচ্ছি। তার স্কুল কলেজ পর্যন্ত আমি দিয়ে এসেছি। নির্বাচনেও আমি পাশে থেকে সহযোগিতা করে যাবো। আমরা তাকে নিয়ে গর্বিত। সে প্রমান করেছে প্রতিবন্ধীরা বোঝা নয়।

সাভারের বিরুলিয়া ও বনগাঁও ইউনিয়নের রিটার্নিং কর্মকর্তা রাকিবুজ্জামান রেনু বলেন, আজ সালমা আক্তার বিরুলিয়ার ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা আসনে নির্বাচন করার জন্য মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। আমরা সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার দিতে বদ্ধ পরিকর।





পুরাতন নিউজ খুঁজুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
©2019-2021 Daily Vorer Kantho. All rights reserved.